সেনা কর্মকর্তা মেয়ের সঙ্গে যখন দেখা হলো পুলিশ কর্মকর্তা বাবার

বাবা হলেন বাংলাদেশ পুলিশের সাব ইনস্পেক্টর; তার কন্যা বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন। নিজে দেশের কাজে নিয়োজিত থেকে মেয়েকেও দেশের কাজে যোগদানের যোগ্য করে গড়ে তুলেছেন। মেয়ের এমন অর্জনে গর্বিত বাবা স্যালুট ঠুকলেন। মেয়েও স্যালুট দিলেন বাবাকে। বাবা-মেয়ের এই বিরল দৃশ্যটি ক্যামেরাব’ন্দি করে পোস্ট করা হয়েছে জেলা পুলিশ রংপুর- এর ফেসবুক পেইজে। পোস্ট করার সাথে সাথেই সোশ্যাল সাইটে ভাইরাল হয়ে গেছে দেশের কাজে নিয়োজিত বাবা-মেয়ের ছবি।

ছবির পুলিশ কর্মক’র্তা হলেন রংপুরের গংগাচড়া থা’নার সাব-ইন্সপেক্টর আব্দুস সালাম। তার কন্যা ডা: শাহনাজ পারভিন বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন। পোস্টের ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ‘অ’ভিনন্দন। পিতা সাব ইন্সপেক্টর আব্দুস সালাম, গংগাচড়া থা’না, রংপুর ও মেয়ে ক্যাপ্টেন ডা: শাহনাজ পারভিনকে। সন্তানের কাছে ধৈর্য,ক’ষ্ট সহিষ্ণু ও নৈতিক আদর্শের প্রতীক হিসেবে নিজেকে গড়ে তুলতে পারলেই কেবল এ ধরনের অ’সাধারণ মুহূর্তের উদ্ভব হয়। জেলা পুলিশ রংপুর এর পক্ষ থেকে আবারো পিতা ও কন্যাকে আন্তরিক অ’ভিনন্দন।’

পোস্টের কমেন্ট সেকশন ভরে গেছে অ’ভিনন্দন বার্তায়। যেমন মাহবুব চে নামের একজন লিখেছেন, ‘অ’সাধারণ, মুখে কোন ভাষা নেই আমা’র!!! সম্মানিত পিতা, সম্মানিত কন্যা আমা’র অ’ভিবাদন গ্রহণ করুন।’ লুৎফর কবির লিখেছেন, ‘অ’সাধারণ মুহূর্ত! গর্বিত বাবা-মা এবং তাদের সন্তানকে স্যালুট। আপনাদের জন্য শুভকামনা।’

সোহরাব আকন্দ লিখেছেন, ‘আলহাম’দুলিল্লাহ্। এ অর্জন শুধুমাত্র এস আই আব্দুস ছালাম স্যারের নয়। এ অর্জন আমা’দের। সমগ্র পুলিশ বাহিনীর। যারা দিন রাত ক্লান্তিহীন, শ্রান্তিহীন ভাবে ২৪ ঘন্টায় ১৮ থেকে ১৯ ঘন্টা দেশের মানুষের কল্যাণে ডিউটি করার পর নিজের পরিবারকে দেয়ার মত একটু সময় পায় না।’

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *